ঢাকা মঙ্গলবার, ২১শে সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭ই আশ্বিন ১৪২৮


দুদিন পর ফের দুঃসংবাদ নিয়ে হাজির হলেন সেব্রিনা


প্রকাশিত:
৩০ মার্চ ২০২০ ১২:৫২

আপডেট:
৩০ মার্চ ২০২০ ১৭:৩২

সংগৃহীত

গত দুদিন সংবাদ সম্মেলনে সুসংবাদ নিয়ে হাজির হয়েছিলেন মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। আজ দিলেন দুঃসংবাদ। স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের এ পরিচালক জানান, গত দুইদিনের পর আজ নতুন করে আরো ১ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরো একজন করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত। সুস্থ হয়েছেন আরো চারজন। এর মধ্যে একজনের বয়স ৮০ বছর। চারজনের মধ্যে একজন ডাক্তার, একজন নার্সও রয়েছেন। নতুন যিনি আক্রান্ত হয়েছেন তিনি একজন নারী। বয়স ২০ এর ঘরে।

এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৯ জনে। ভাইরাসটি থেকে সুস্থ হয়েছেন আরও চারজন। ফলে মোট সুস্থ হয়েছেন ১৯ জন।

সোমবার (৩০ মার্চ) রাজধানীর মহাখালীতে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউট (আইইডিসিআর) অনলাইন প্রেস কনফারেন্সের মাধ্যমে এ তথ্য জানান সেব্রিনা।

ফ্লোরা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় আইইডিসিআর এর হটলাইনে কল এসেছে ৪৭২৫টি। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৫৩ জনের। মোট নমুনা পরীক্ষা ১৩৩৮টি।

তিনি বলেন, গত দু’দিন দেশে কেউ আক্রান্ত না হওয়ায় অনেকে মনে করেছেন বাংলাদেশ ঝুঁকিমুক্ত। কিন্তু এটা ভাবার কোনো কারণ নেই। আমাদের প্রতিরোধ চালু রাখতে হবে। সাধারণ জনগণের প্রতি আবেদন আপনারা ঘরে থাকুন, আপনারা বের হবেন না। ঘরে থাকাটা অত্যন্ত জরুরি। সরকার যেসব নির্দেশনা দিয়েছে সে আপনাদের ভালোর জন্য দিয়েছে। নিতান্ত বাইরে বের হতে হলে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করবেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে এমআইএস বিভাগের পরিচালক মো. হাবিবুর রহমান। তিনি বলেন, দেশে ৫৫ হাজার মানুষ এখন কোয়ারেন্টিনে। কোয়ারেন্টিন মুক্ত করা হয়েছে ২৯ হাজার। বাকিরা এখনও আছেন। ঢাকা শহরে ৮টি সরকারি হাসপাতাল করোনা চিকিৎসার জন্য প্রস্তুত।

বিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা এখন পর্যন্ত দাঁড়িয়েছে ৩৪ হাজার ২৯ জন। ইতালিতে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে আরও ৮৮৯ জনের। করোনার মত আগে কখনও এরকম দুর্যোগের মুখোমুখি হয়নি শিল্প উন্নত এ দেশটি। মৃত্যুর কড়া নাড়ে প্রতিদিন কারো না কারো দরজার কপটে। কেউ হয় পিতামাতা হারা কেউ হারায় স্বজন। এরইমধ্যে করোনায় বিপর্যস্ত হয়ে পথ চলা বন্ধ করেনি ইতালি সরকার। এনিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ১০ হাজার ২৩ জন।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top